সব কিছু
facebook channelkhulna.tv
খুলনা শুক্রবার , ২২শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৭ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
কুয়েট উপাচার্যের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ১২ আগস্ট, কে হচ্ছেন পরবর্তী উপাচার্য | চ্যানেল খুলনা

কুয়েট উপাচার্যের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ১২ আগস্ট, কে হচ্ছেন পরবর্তী উপাচার্য

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) বর্তমান উপাচার্যের দায়িত্বের মেয়াদ শেষ হবে আগামী ১২ আগস্ট। ২০১৮ সালের ১৩ আগস্ট বর্তমান উপাচার্য প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন নিয়োগ পেয়েছিলেন। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউ অব টেকনোলজী (বিআইটি) থেকে ২০০৩ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত হওয়ার পর কুয়েট থেকেই উপাচার্য নিয়োগ হওয়ার প্রচলন রয়েছে। আইন অনুযায়ী, জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে গ্রেড-১ তালিকাভুক্ত অধ্যাপকরাই ইতঃপূর্বে কুয়েটের উপাচার্য হয়েছেন। বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়, কুয়েটের উপাচার্য তালিকায় আলোচনায় প্রথমেই রয়েছেন বর্তমান উপাচার্য এবং কুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের গ্রেড-১ পদধারী অধ্যাপক ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-১৩)। এর পরই আলোচনায় রয়েছেন, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের গ্রেড-১ পদধারী অধ্যাপক ড. মিহির রঞ্জন হালদার (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-১০), গ্রেড-২ পদধারী অধ্যাপক ড. সোবহান মিয়া (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-৪৮) এবং সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের গ্রেড-২ পদধারী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ হারুনুর রশীদ (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-২৫)। এদের মধ্যে বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন কুয়েটের প্রাক্তন শিক্ষার্থী এবং অপর তিনজন রুয়েটের।
কুয়েটে অধ্যয়নরত এবং সাবেক শিক্ষার্র্থীরা আশা করেন নিয়ম অনুযায়ী এবং জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে যেনো কুয়েটিয়ানদের মধ্য থেকে আগামীতে কুয়েটের উপাচার্য নিয়োগ দেওয়া হয়। যদিও এর আগে বুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থী প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর দুই মেয়াদে কুয়েটের উপাচার্যের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। কুয়েটে বর্তমানে জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে গ্রেড-১ তালিকাভুক্ত ২৮ জন অধ্যাপক রয়েছেন। এর মধ্যে কুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থী ১০ জন। কুয়েটিয়ান এবং গ্রেড-১ শিক্ষকরা হলেন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. খন্দকার আফতাব হোসেন (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-২), অধ্যাপক ড. এএনএম মিজানুর রহমান (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-৩), সিএসই বিভাগের অধ্যাপক ড. এমএমএ হাসেম (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-৬), সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী হামিদুল বারী (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-৮), ইইই বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহা. রফিকুল ইসলাম (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-১২), অধ্যাপক ড. আশরাফুল গণি ভূঁইয়া (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-১৫), অধ্যাপক ড. আবদুর রফিক (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-১৬), সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ সাইফুল ইসলাম (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-১৭) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ শাহজাহান আলী (জ্যেষ্ঠতার ক্রম-৩৪)।
উল্লেখ্য, গত চার বছরে কুয়েটে অ্যাডহক এবং মাস্টাররোলে কোনো নিয়োগ হয়নি। যার ফলে নিয়োগ বাণিজ্যের কোন অভিযোগ ছিলনা। এছাড়া কুয়েটের ছাত্ররাজনীতি সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালিত হয়েছে। চালু হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’। আগামী ১০ আগস্ট ‘বঙ্গবন্ধু চেয়ার’-এর বিষয়টি সিন্ডিকেটে অনুমোদন হওয়ার কথা রয়েছে। ‘বঙ্গবন্ধু চেয়ার’ কুয়েটসহ মাত্র ৪টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। গবেষণা ও শিক্ষা কার্যক্রম সম্প্রসারণ ও আদান-প্রদানের লক্ষ্যে বিদেশী ২০ টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং দেশীয় ৪টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কুয়েটের সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) চুক্তিসহ উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে। ২০২০-২০২১ অর্থবছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির (এপিএ) বাস্তবায়নে ৪৬ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে তৃতীয় স্থানে কুয়েট। নাসার স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন কুয়েট শিক্ষার্থীদের টিম। করোনা মহামারীতে অনলাইনে ক্লাশ ও পরীক্ষা চালুর মাধ্যমে একাডেমিক কার্যক্রম সচল ছিল। কুয়েটে এলামনাই এসোসিয়েশন এবং শিক্ষার্থীদের জন্য চালু করা হয়েছে ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট কর্নার। শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের জ্ঞান ও কর্মদক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন ওয়ার্কশপ, সেমিনার ও প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠিত হয়েছে বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সেমিনার ও কনফারেন্স। বিভিন্ন অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে। হাই ইমপ্যাক্ট জার্নালে রিসার্চ পেপার প্রকাশের জন্য কুয়েটে প্রথমবারের মতো চালু করা হয়েছে ভাইস-চ্যান্সেলর এ্যাওয়ার্ড। মুজিব শতবর্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের দেওয়া হয়েছে সংবর্ধনা এবং প্রকাশিত হয়েছে মুজিববর্ষের স্মরণীকা “মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব”।
কুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদমান নাহিয়ান সেজান বলেন, আমরা চাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের এবং কুয়েটিয়ান থেকেই আগামীতে ভিসি নিয়োগ করা হোক। কুয়েট অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য সচিব ড. আবু জাকির মোর্শেদ জানান, কুয়েট থেকে যারা গ্র্যাজুয়েশন করেছেন সেসব শিক্ষকের মধ্য থেকে ভিসি নিয়োগ হলে যে ডেডিকেশন নিয়ে কাজ করবে অন্যরা হয়তো অতটা করবে না। এ বিষয়ে কুয়েটের বর্তমান উপাচার্য প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন-এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমার পিতা একজন শিক্ষক ছিলেন। আমিও একজন শিক্ষক। আমার দায়িত্বকালে চেষ্টা করেছি শিক্ষকতার জায়গা থেকে নৈতিকতা ও মূল্যবোধ ঠিক রেখে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাস্তবিক প্রয়োগ ঘটানোর যার মাধ্যমে এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে।

https://channelkhulna.tv/

শিক্ষাঙ্গন আরও সংবাদ

পরিবেশকে সমুন্নত রাখতে আমাদের মানসিক পরিবর্তন প্রয়োজন : উপাচার্য

কুয়েটের ভাইস-চ্যান্সেলরের সাথে ‘বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর’ এর সৌজন্য সাক্ষাৎ

যশোর বোর্ডের স্থগিত বাংলা দ্বিতীয় পত্রের এমসিকিউ পরীক্ষা ৩০ সেপ্টেম্বর

খুবিতে সিজেডএম’র জিনিয়াস স্কলারশিপ অ্যাওয়ার্ড প্রদান

কুয়েটে ‘ফর্মূলা স্টুডেন্ট এন্ড অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

কুয়েটে ‘পোস্ট এ্যাক্রিডিটেশন রিভিউ ওয়ার্কশপ ফর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট’ শীর্ষক ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

চ্যানেল খুলনা মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন  
DMCA.com Protection Status
উপদেষ্টা সম্পাদক: এস এম নুর হাসান জনি
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: শেখ মশিউর রহমান
It’s An Sister Concern of Channel Khulna Media
© ২০১৮ - ২০২২ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | চ্যানেল খুলনা.বাংলা, channelkhulna.com, channelkhulna.com.bd
যোগাযোগঃ কেডিএ এপ্রোচ রোড (টেক্সটাইল মিল মোড়), নিউ মার্কেট, খুলনা।
ঢাকা অফিসঃ ৬৬৪/এ, খিলগাও, ঢাকা-১২১৯।
ফোন- 09696-408030, 01704-408030, ই-মেইল: channelkhulnatv@gmail.com
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্তির জন্য আবেদিত।